কুমিল্লায় অস্ত্রের মহড়া, গ্রেফতার পাঁচ

কুমিল্লায় অস্ত্রের মহড়া দেওয়ার ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার র‌্যাব-১১ সিপিসি-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
গ্রেফতারকৃতরা হলো-রাজ্জাক গ্রুপের অন্যতম সদস্য নগরীর গর্জনখোলার মো. হৃদয়(২১), চর্থার নিজাম উদ্দিন মিঠু (২২), ঘটনার অন্যতম মূলহোতা রাজ্জাক গ্রুপের প্রধান গর্জনখোলার মো. রাজ্জাক(৪৮), রবিন গ্রুপের অন্যতম সদস্য ও উক্ত ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় দেশীয় অস্ত্রসহ অংশগ্রহণকারী সংরাইশ এলাকার সজিব মিয়া(২৯) ও সজীবের আশ্রয়দাতা চকবাজারের নাজমুল হাসান দীপু(৩২)। অভিযানে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, নয়টি রামদা এবং স্টিলের তৈরি লাঠি উদ্ধার করা হয়।
  র‌্যাব জানায়,গত ১৩ মার্চ দুপুরে কুমিল্লা নগরীর চকবাজার গর্জন খোলা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রাজ্জাক গ্রুপ ও রবিন গ্রুপের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় তারা প্রকাশ্যে দেশীয় ও বিদেশি অস্ত্র হাতে মহড়া করলে এলাকার সাধারণ জনগণ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশ করা হলে অতি দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়। যা কুমিল্লাসহ সারাদেশে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। এ ঘটনার পর থেকেই র‌্যাব-১১, সিপিসি-২, কুমিল্লা ক্যাম্প ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত অস্ত্রধারীদের গ্রেফতারে গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে। গোয়েন্দা তথ্য ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ১৭ মার্চ রাতে, ১৮ মার্চ ভোর ও দিনের বেলায় তাদের কুমিল্লা এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করা হয়।
র্যাব জানায়, প্রাথমিক অনুসন্ধান ও গ্রেফতারকৃত আসামিদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, এলকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দেশীয় ও বিদেশি অস্ত্রসহ ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটায়। গ্রেফতারকৃত আসামিরা এ ঘটনায় তাদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছে। এছাড়াও সিসি টিভির ফুটেজ বিশ্লেষণের মাধ্যমে বাকি অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।